মেনু নির্বাচন করুন
পাতা

এক নজরে

 

বাংলাদেশ শিশু একাডেমী নীলফামারী জেলা শাখা অফিসটি নিজস্ব জায়গায় শহরের কেন্দ্রবিন্দু শাহীপাড়া(জেলা শিল্পকলা একাডেমীর বিপরীতে) অবস্থিত। ১৯৯৪ সাল হতে প্রতি বছর জানুয়ারি থেকে ফেব্রয়ারি পর্যন্ত অন-লাইনে বিভিন্ন প্রশিক্ষণ কোর্সে শিশুদের ভর্তি কার্যক্রম এর আবেদন গ্রহণ করা হয়। ফরম, ভর্তি ফি, পরিক্ষার ফি, বার মাসের বেতন, শিশু পত্রিকাসহ মোট ১,১৯৫/- টাকার বিনিময়ে শিশুদের ভর্তি করা হয়। ভর্তি যোগ্য শিশুর বয়স ৫ থেকে ১৩ বছর। উল্লেখ্য যে বিশেষ চাহিদা সম্পন্ন শিশুদের বিনা বেতনে ভর্তির সুযোগ রয়েছে ।

শিশুদের সুষ্ঠ বিকাশের উপর নির্ভর করছে সমাজ দেশের উন্নতি ও ভবিষ্যৎ । শিশুরাই জাতির আশা আকাংখার প্রতীক। শিশুরাই আগামী প্রজন্ম হিসাবে দেশ পরিচালনা করবে। আমরা চাই আগামী প্রজন্ম গড়ে উঠুক কল্যাণকামী ত্ত সৌন্দর্যমূলক জীবনবাদী দৃষ্টিভঙ্গির মধ্য দিয়ে। এই স্বপ্ন আমাদের চেতনায় জাগিয়ে দিয়েছেন জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। সরকারের শিশুবান্ধব পরিকল্পনা ও কর্মসূচির বাস্তব রুপরেখা মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ধীন বাংলাদেশ শিশু একাডেমীর মাধ্যমে বাস্তবায়ন করছে।  জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্নের সোনার বাংলা বিনির্মাণে এ দেশের শিশুদের সাংস্কৃতিক চর্চার মাধ্যমে সৃজনশীল শিশু হিসেবে গড়ে তুলতে বহুমাত্রিক কার্যক্রম পরিচালনা করছে বাংলাদেশ শিশু একাডেমী। বাংলাদেশের একমাত্র শিশু বিষয়ক প্রতিষ্ঠান বাংলাদেশ শিশু একাডেমী।

 

শিশুদের প্রত্যক্ষ পরিচর্যা ও সাহচর্যের একটি সুন্দর মানবিক কেন্দ্র হিসেবে গড়ে উঠেছে বাংলাদেশ শিশু একাডেমী, নীলফামারী জেলা শাখা। মহান মুক্তিযুদ্ধের সংগ্রামী ইতিহাস ও বাঙালির বর্ণিল ঐতিহ্যের সঙ্গে শিশুদের পরিচয় করিয়ে দেয়ার অর্থই হলো ভবিষ্যতের জন্য গৌরবময় পথ তৈরি করে দেওয়া। যেখানে থাববে পারিবারিক শ্রদ্ধাবোধ, বন্ধুত্বময় পরিবেশ, একে-অপরের প্রতি সহমর্মিতা, মানবিক গুণাবলি সম্পন্ন আচরণ এবং অসাম্প্রদায়িক সাংস্কৃতিক শিক্ষা। এসবের মধ্য দিয়েই আজকের শিশুরা একদিন সাম্য ও সমতার বিশ্ব নির্মাণে হয়ে উঠবে আগামী দিনের নেতৃত্ত্বদানকারী । শিশুদের সুপ্ত ও মানবিক মেধা বিকাশ সাধনের লক্ষে বাংলাদেশ শিশু একাডেমী, নীলফামারী জেলা শাখা শিশুদের জন্য বছর ব্যাপি বিভিন্ন কর্মসূচি গ্রহণ করে থাকে। বছর ব্যাপি গৃহিত বিভিন্ন কর্মসূচিতে শিশু কিশোর উপযোগী সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সক্রিয়ভাবে অংশগ্রহণ করে থাকে।

 

বাংলাদেশ শিশু একাডেমী প্রতিবছর ০২টি জাতীয় প্রতিযোগিতার আয়োজন করে থাকে। (১) জাতীয় শিশু পুরস্কার প্রতিযোগিতা, (২) শিশুদের মৌসুমী প্রতিযোগিতা। উক্ত ০২টি প্রতিযোগিতায় সারা দেশে প্রতিবছর প্রায় ৪০ লক্ষ শিশু অংশগ্রহণ করে থাকে।

 

বাংলাদেশ শিশু একাডেমী, নীলফামারী জেলা শাখা ৪-৫ বছরের শিশুদের শিশু বিকাশ ও প্রাক-প্রাথমিক শিক্ষা নামে ০২টি কেন্দ্র চালু আছে। উক্ত ০২টি কেন্দ্রে প্রতিবছর ৬০ জন শিশুকে বিনা বেতনে শিক্ষা দান করা হয়। এছাড়া ০২ বছর মেয়াদি শিশুদেরকে সংগীত, নৃত্য, আবৃত্তি ও চিত্রাংকন প্রশিক্ষণ প্রদান করা হয়। বিশেষ চাহিদা সম্পন্ন শিশুদের বিনা বেতনে  প্রশিক্ষণ প্রদান করা হয়।

শিশুর সঙ্গা : ১৮ বছরের নিচে সকল মানব সন্তানকে শিশু হিসেবে গণ্য করা হয়।

শিশুদের সুষ্ঠ বিকাশের উপর নির্ভর করছে সমাজ দেশের উন্নতি ও ভবিষ্যৎ । শিশুরাই জাতির আশা আকাংখার প্রতীক। শিশুরাই আগামী প্রজন্ম হিসাবে দেশ পরিচালনা করবে। আমরা চাই আগামী প্রজন্ম গড়ে উঠুক কল্যাণকামী ত্ত সৌন্দর্যমূলক জীবনবাদী দৃষ্টিভঙ্গির মধ্য দিয়ে। এই স্বপ্ন আমাদের চেতনায় জাগিয়ে দিয়েছেন জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। সরকারের শিশুবান্ধব পরিকল্পনা ও কর্মসূচির বাস্তব রুপরেখা মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ধীন বাংলাদেশ শিশু একাডেমীর মাধ্যমে বাস্তবায়ন করছে।  জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্নের সোনার বাংলা বিনির্মাণে এ দেশের শিশুদের সাংস্কৃতিক চর্চার মাধ্যমে সৃজনশীল শিশু হিসেবে গড়ে তুলতে বহুমাত্রিক কার্যক্রম পরিচালনা করছে বাংলাদেশ শিশু একাডেমী। বাংলাদেশের একমাত্র শিশু বিষয়ক প্রতিষ্ঠান বাংলাদেশ শিশু একাডেমী।

 

শিশুদের প্রত্যক্ষ পরিচর্যা ও সাহচর্যের একটি সুন্দর মানবিক কেন্দ্র হিসেবে গড়ে উঠেছে বাংলাদেশ শিশু একাডেমী, নীলফামারী জেলা শাখা। মহান মুক্তিযুদ্ধের সংগ্রামী ইতিহাস ও বাঙালির বর্ণিল ঐতিহ্যের সঙ্গে শিশুদের পরিচয় করিয়ে দেয়ার অর্থই হলো ভবিষ্যতের জন্য গৌরবময় পথ তৈরি করে দেওয়া। যেখানে থাববে পারিবারিক শ্রদ্ধাবোধ, বন্ধুত্বময় পরিবেশ, একে-অপরের প্রতি সহমর্মিতা, মানবিক গুণাবলি সম্পন্ন আচরণ এবং অসাম্প্রদায়িক সাংস্কৃতিক শিক্ষা। এসবের মধ্য দিয়েই আজকের শিশুরা একদিন সাম্য ও সমতার বিশ্ব নির্মাণে হয়ে উঠবে আগামী দিনের নেতৃত্ত্বদানকারী । শিশুদের সুপ্ত ও মানবিক মেধা বিকাশ সাধনের লক্ষে বাংলাদেশ শিশু একাডেমী, নীলফামারী জেলা শাখা শিশুদের জন্য বছর ব্যাপি বিভিন্ন কর্মসূচি গ্রহণ করে থাকে। বছর ব্যাপি গৃহিত বিভিন্ন কর্মসূচিতে শিশু কিশোর উপযোগী সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সক্রিয়ভাবে অংশগ্রহণ করে থাকে।

 

বাংলাদেশ শিশু একাডেমী প্রতিবছর ০২টি জাতীয় প্রতিযোগিতার আয়োজন করে থাকে। (১) জাতীয় শিশু পুরস্কার প্রতিযোগিতা, (২) শিশুদের মৌসুমী প্রতিযোগিতা। উক্ত ০২টি প্রতিযোগিতায় সারা দেশে প্রতিবছর প্রায় ৪০ লক্ষ শিশু অংশগ্রহণ করে থাকে।

 

বাংলাদেশ শিশু একাডেমী, নীলফামারী জেলা শাখা ৪-৫ বছরের শিশুদের শিশু বিকাশ ও প্রাক-প্রাথমিক শিক্ষা নামে ০২টি কেন্দ্র চালু আছে। উক্ত ০২টি কেন্দ্রে প্রতিবছর ৬০ জন শিশুকে বিনা বেতনে শিক্ষা দান করা হয়। এছাড়া ০২ বছর মেয়াদি শিশুদেরকে সংগীত, নৃত্য, আবৃত্তি ও চিত্রাংকন প্রশিক্ষণ প্রদান করা হয়। বিশেষ চাহিদা সম্পন্ন শিশুদের বিনা বেতনে  প্রশিক্ষণ প্রদান করা হয়।

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

ছবি


সংযুক্তি

0543f4cc42f47e950cec18937bc6acc5.docx 0543f4cc42f47e950cec18937bc6acc5.docx


সংযুক্তি (একাধিক)



Share with :

Facebook Twitter